ফেনী    ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ        রাত ১০:৩৩
মহামান্য রাষ্ট্রপতি’র মধুময় দাম্পত্যের ৫৬তম বার্ষিকী আজ।সত্যের সন্ধানে নিউজ।-সত্যের সন্ধানে নিউজ
তারিখ - অক্টোবর ৪, ২০২০ জাতীয়
এডিটর - সুমন পাটোয়ারী

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মোহাম্মদ হাসানঃ ‘কোনকালে একা হয়নি তো জয়ী পুরুষের তরবারি/ সাহস দিয়েছে প্রেরণা দিয়েছে বিজয়ালক্ষ্মী নারী’। জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম যথার্থই বলেছিলেন প্রতিটি পুরুষের সাফল্যের পেছনে অধ্যবসায়, কর্মনিষ্ঠা ও একাগ্রতা যেমন থাকতে হয়, তেমনি আড়ালে থাকতে হয় একজন প্রেরণাময়ী নারী। তেমনি বাংলার লক্ষী নারী মহামান্য রাষ্টপতি এডভোকেট মোঃ আবদুল হামিদ’র জীবন সঙ্গীনি বেগম রাশিদা হামিদ। কিশোরগঞ্জ জেলার হাওরবেষ্টিত উপজেলা মিঠামইনের প্রত্যন্ত গ্রাম কামালপুর থেকে উঠে আসা একজন আবদুল হামিদের সাফল্যের ক্ষেত্রেও আড়াল থেকে তাঁকে সুন্দরের অভিযাত্রায় এগিয়ে নিয়েছেন তেমনি একজন মমতাময়ী প্রেরণাদাত্রী নারী, যাঁর নাম বেগম রাশিদা হামিদ। রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের ৫৬ বছরের দাম্পত্য জীবনের সবচেয়ে কাছের মানুষ রাশিদা খানমের প্রেরণা ও সহযোগিতাই এই জননেতাকে রাষ্ট্রের শীর্ষ পর্যায়ে পৌঁছে দেয়ার ক্ষেত্রে অনেক বড় ভূমিকা রেখেছে বলে স্বয়ং আবদুল হামিদও অকপটে স্বীকার করেছেন বিভিন্ন আলোচনায়। হাওরের প্রবেশদ্বার করিমগঞ্জ উপজেলার জাফরাবাদ গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত পরিবারের মেয়ে রাশিদা খানম। পরিবারের তীব্র বাধা পেরিয়ে ১৯৬৪ সালে ওই হাওর-তরুণের মন কেড়ে নেন রাশিদা খানম। আকাশ ছোঁয়ার স্বপ্নে শক্তি আর সাহস জোগাতে নেপথ্য থেকে অনুপ্রেরণা দিতে থাকেন এই মহিয়সী নারী। সেই থেকে গল্পের শুরু। গ্রামের একজন সাধারণ ঘরের অতি সাধারণ তরুণী হয়েও নিজের শ্রম-মেধা আর মননের মিথস্ক্রিয়ায় একজন ভালবাসার মানুষকে অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছে দিতে অসাধারণ ভূমিকা রেখেছেন রাশিদা খানম। রাজনীতির মাঠে তদানীন্তন স্বৈর-শাসক আইয়ূব খানের বিরুদ্ধে ছাত্র আন্দোলনকে বেগবান করতে গিয়ে যে মানুষটি সেই তরুণ বয়সেই ঘর ছেড়ে বহির্মুখী বোহেমিয়ান জীবন বেছে নিয়েছিলেন, ছন্নছাড়া সেই মানুষটিকে ভালবেসে তাঁর মঙ্গলের জন্য যিনি দিন-রাত শ্রম, মেধা আর মননকে বিনিয়োগ করেছেন, তিনিই এ দেশের ইতিহাসের দ্বিতীয় মেয়াদের প্রথম রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের প্রাণপ্রিয় সহধর্মিনী বেগম রাশিদা হামিদ। এই সফল দম্পতির আজ ৪ অক্টোবর ৫৬তম বিবাহ বার্ষিকী। জীবনের দীর্ঘ ৫৬টি বছর সুখে-দুখে, রাজনৈতিক দুঃসময় ও দুর্বিপাকে একসাথে কাটিয়ে এসেছেন জীবনের অধিকাংশ সময়। এরমধ্যে তাঁরা হয়েছেন তিনপুত্র ও এক কন্যার গর্বিত জনক-জননী। মাঠের রাজনীতি করতে গিয়ে আজকের রাষ্ট্রপতি কখনোই ঘর-সংসার কিংবা স্ত্রী-পুত্রের খবর রাখতে পারেননি অথবা একান্ত প্রয়োজনেও পরিবারের সদস্যদের সময় দিতে পারেননি। তিনি সব-সময় থেকেছেন গণমানুষের সাথে। মানুষই যেন তাঁর কাছে সব, মানুষের ঘরই যেন তাঁর ঘর, তাঁর সংসার। গণমানুষের সাথে মিশতে গিয়ে আবদুল হামিদ ভুলে যেতেন নিজের ঘরের কথা, সংসারের কথা, এমনকি স্ত্রী-পুত্রের কথাও। এসব নিয়ে কোনদিনও অনুযোগ কিংবা অভিমান প্রকাশ করেননি স্ত্রী রাশিদা খানম। সব দুঃখ, নৈরাশ্য ও বঞ্চনাকে মেনে নিয়ে তিনি আবদুল হামিদের পাশে অনেকটা নেপথ্য অভিভাবকের মতোই দায়িত্ব পালন করেছেন। করিমগঞ্জ উপজেলার জাফরাবাদ গ্রামের মৃত আব্দুল হালিম খানের চার ছেলে আর দুই মেয়ের মধ্যে রাশিদা সবার বড়। বাড়ির পাশের মাছিমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণি পাস করার পর ১৯৬৩ সালে এসভি সরকারি বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করেন। এরপর কিশোরগঞ্জের গুরুদয়াল কলেজে ভর্তি হন। এ সময় পরিচয় হয় কামালপুরের সেই সম্ভাবনাময় তরুণ গুরুদয়াল কলেজ ছাত্র সংসদের তৎকালীন জিএস মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে। পরিচয় থেকে প্রেম। প্রেম থেকে শুভ পরিনয়। এইচএসসি পাস করার আগেই আবদুল হামিদের সঙ্গে পরিণয়সূত্রে আবদ্ধ হন তিনি। তবে তাঁদের বিয়েটা এত সহজ ছিল না। রাজনীতি করা বোহেমিয়ান ছেলের সঙ্গে কিছুতেই বিয়ে দিতে রাজি ছিলেন না তার মামা-খালারা। কিন্তু আবদুল হামিদ আর রাশিদার মন যে সবার অন্তরালে বাঁধা পড়ে গেছে একে অন্যের প্রেমের বন্ধনে। এ বন্ধন ছিন্ন করার সাধ্য কারোরই নেই। তাঁদের অকৃত্রিম প্রেমের বন্ধন ছিন্ন করার জন্য রাশিদার পরিবার থেকে অনেক চেষ্টা ছিল বটে, কিন্তু তরুণী রাশিদার প্রেমের প্রগাঢ়তার কাছে পরিবারের সব চেষ্টাই শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হয়ে যায়। তাই এক সময় উভয় পরিবারের সম্মতির মধ্য দিয়ে এই প্রেমিকযুগলের অবিচ্ছিন্ন প্রেম সামাজিকভাবে চূড়ান্ত পরিণতি লাভ করে। প্রেমিক-প্রেমিকা থেকে তারা হয়ে ওঠেন আদর্শ স্বামী-স্ত্রী। রাশিদার মাতামহ সেই সময়কার পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের সদস্য মাওলানা সাইদুর রহমানের হস্তক্ষেপে ও মধ্যস্থতায় ১৯৬৪ সালে ৪ অক্টোবর এই প্রেমিকযুগল বিয়ের পিঁড়িতে বসেন। স্বামীর দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে জেল-জুলুম, হুলিয়া আর নির্যাতনের বর্ণনা দিতে গিয়ে রাশিদা হামিদ ইতিপূর্বে সংবাদ মাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ৫২’র ভাষা আন্দোলন, ৬৬’র শিক্ষা আন্দোলন, ছয়দফা, আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা, সর্বোপরি ১৯৬৯ সালের গণ-আন্দোলন আর একাত্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন আবদুল হামিদ। মুক্তিযুদ্ধের সময় মিঠামইনে গ্রামে গ্রামে পালিয়ে বেড়াতে হয় রাশিদাকে। সে সময়ে ডাকাতরা কেড়ে নেয় সর্বস্ব। এমন কঠিন পরিস্থিতিতে সন্তানদের মুখে সময়মতো খাবার তুলে দিতে পারেননি। মেলেনি প্রয়োজনীয় কাপড়। তবে থামেনি তার জীবন-সংগ্রাম। আবদুল হামিদকে রাজনীতির কারণে বারবার জেলে যেতে হয়েছে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর ১৯৭৬ সালে গ্রেফতার করা হয় আবদুল হামিদকে। দুই বছর পর তাকে জেল থেকে বের করে আনেন রাশিদা হামিদ। আাজ তাঁদের বিবাহ বার্ষিকীর দিনে কামনা থাকলো,’মধুময় দাম্পত্য অটুট থাকুক’।

Материалы по теме:

সীতাকুণ্ডে গলায় ফাঁস দিয়ে কিশোরীর আত্মহত্যা।
জেলার সীতাকুণ্ডে গলায় ফাঁস দেওয়া এক কিশোরীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ১০ টার সময় উপজেলার সোনাইছড়ি ইউনিয়নের শীতলপুরস্থ বগুলা বাজারের ...
প্রতিশোধ কিন্তু জনগণ একদিন ঠিকই নেবে: রিজভী।সত্যের সন্ধানে নিউজ।
মোহাম্মদ হাসানঃ বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব এডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন,রাজনীতির হাওয়া যেকোনো সময় পরিবর্তন হয়ে যেতে পারে। ‘রাজনীতির হাওয়া কিন্তু দেখেশুনে আসে না। ...
তানোর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে যথাযথ মর্যাদায় ১৬ই ডিসেম্বর বিজয় দিবস পালিত
তানোর প্রতিনিধি: রাজশাহীর তানোর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে যথাযথ মর্যাদায় ১৬ই ডিসেম্বর বিজয় দিবস পালন করা হয়েছে। আজ(১৬ই ডিসেম্বর) সকাল থেকে উপজেলা পরিষদ চত্বরে অবস্থিত ...
জাহাঙ্গীর কবির নানক হোম কোয়ারেন্টিনে দেশবাসীর দোয়া চাইলেন তিনি ও তাঁর পরিবার।সত্যের সন্ধানে নিউজ।
মোহাম্মদ হাসানঃ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য, সাবেক এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গত বুধ ও বৃহস্পতিবার দুই দফা করোনা ...
ভালোবাসা প্রীতিলতা’ নতুন প্রজন্মের কাছে গৌরবের ইতিহাস তুলে ধরবে -তথ্যমন্ত্রী। সত্যের সন্ধানে নিউজ।
মোহাম্মদ হাসানঃ তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ব্রিটিশবিরোধী স্বাধীনতা সংগ্রামে প্রাণদানকারী উপমহাদেশের প্রথম নারী বিপ্লবী প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার স্মরণে ...
আপনার মন্তব্য লিখুন
  •   পটুয়াখালী জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে আলোচনায় যারা
  •   মৌলভীবাজারে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের আইনে ৫ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা
  •   নোয়াখালীতে ১৩ ইউপি নির্বাচনে ৯ জন আ.লীগ প্রার্থী ও ৪ জন বিদ্রোহী প্রার্থীর জয়।
  •   স্বাধীন ওয়াইফাই আহসান হাবীব পাটোয়ারী এর বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ
  •   ঠাকুরগাঁও অনলাইন প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত কমিটির সাথে পুলিশ সুপারের মতবিনিময়
  •   নোয়াখালীতে আলোচিত স্কুল ছাত্রী বৃষ্টি হত্যা মামলায় ১ ব্যক্তির যাবজ্জীবন কারাদন্ড।
  •   হাতীবান্ধায় পুকুরে পড়ে শিশুর মৃত্যু
  •   লালমনিরহাট ৮ম শ্রেণীর শালিকা কে নিয়ে দুলাভাই উধাও
  •   ডাকাতির প্রস্তুতিকালে অস্ত্রসহ ৫ ডাকাতকে আটক করেছে পরশুরাম মডেল পুলিশ
  •   মীরসরাইয়ের ইছাখালীতে উপকূলীয় এলাকায় বনায়ন প্রকল্পের উদ্বোধন
  •   মৌলভীবাজারে শ্রীমঙ্গলে রেলের জমি উদ্ধারে বাধা, রেলের এক্সাভেটরে দুর্বৃত্তের আগুন।
  •   প্রধানমন্ত্রীর সফর সঙ্গী হয়ে জাতিসংঘের অধিবেশনে যোগ দিচ্ছেন ফেনীর জেলা পরিষদ চেয়াম্যান তপন
  •   ইভ্যালির রাসেল-নাসরিন গ্রেপ্তার
  •   নতুন বাজার ফ্যান ক্লাব গ্রুপ ফাউন্ডেশন এ’র পক্ষ থেকে ক্যান্সার রোগীকে নগদ অর্থ প্রদান।
  •   ফুলগাজীতে জেলা প্রশাসকের সাথে মতবিনিময় সভা
  •   বোরকা পড়ে স্কুলে আসায় ক্লাস করতে পারলো না শিক্ষার্থীরা এমন মন্তব্য অপপ্রচার ও ভিত্তিহীন
  •   নোয়াখালীতে যুব উন্নয়ন অধিদফতরের পক্ষ থেকে চারাগাছ ও মৎস্য প্রশিক্ষণ সনদ বিতরণ
  •   পরশুরামে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম কলেজে নবীন শিক্ষার্থীদের বরণ
  •   সুস্থ থাকার আশায় ঢাকাতে ডায়ালাইসিস করতে গিয়ে সড়ক দূর্ঘটনায় আনোয়ারের মৃত্যু
  •   দাগনভূঞা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ঝাড়ফুঁক বলে চিকিৎসকের উপর হামলা আহত ৪, গ্রেফতার ২











  • উপদেষ্টা : দিদারুল কবির রতন
    পৃষ্টপোষক : জসিম উদ্দিন লিটন
    ব্যবস্থাপনা পরিচালক : ফারুক আহমেদ সুমন
    সহ ব্যবস্থাপনা পরিচালক: মো: শাহ আলম
    সম্পাদক ও প্রকাশক : সুমন পাটোয়ারী
    অফিস : লিটন ব্রাদার্স ফাজিলের ঘাট-রোড দাগনভূঞা, ফেনী
    ফোন: 01816284600


    জসিম উদ্দিন লিটন
    সম্পাদক ও প্রকাশক

    সুমন পাটোয়ারী
    নির্বাহী সম্পাদক ও এডিটর


    বি:দ্রি:-উক্ত অনলাইন পোর্টালটির সকল পেপার্সের কার্যাদি প্রক্রিয়াধীন আছে।
    © 2021. sottersondhanenews.com All Right Reserved.
    Developed By   AS Shuvo
    উপরে যান