ফেনী    ৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ        রাত ১:০৭
আমরা ধর্মান্ধারা ইসলাম গেলো গেলো বলে হা হুতাশ বিলাপ করে বেড়াই: মোহাম্মদ হাসান-সত্যের সন্ধানে নিউজ
তারিখ - ডিসেম্বর ২০, ২০২০ জেলার সংবাদ
এডিটর - সুমন পাটোয়ারী

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

গেলো বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা রাতে সংবাদ মাধ্যমে ” আহমদ শফীকে ‘হত্যার’ অভিযোগে ৩৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা” এমন শিরোনামের খবর পড়লাম। সেখানে আইনজীবী আবু হানিফ বলেছেন, “আসামিরা মানসিক নির্যাতন করে আল্লামা শফীকে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে।” আদালতে শফী হুজুরের শ্যালক মো. মইন উদ্দিনের করা এই মামলায় ৩৬ জনকে আসামি করা হয়েছে, যাঁদের অধিকাংশই হেফাজতে ইসলামের বর্তমান আমির জুনাইদ বাবুনগরীর অনুসারী। যার মধ্যে মামলায় এক নম্বর আসামি করা হয়েছে মাওলানা মো. নাসির মুনিরকে। আর দুই নম্বর আসামি করা হয়েছে সাম্প্রতিক সময়ে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের বিরোধিতার জন্য আলোচনায় আসা হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে। হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল হক ইসলামাবাদী, কেন্দ্রীয় নেতা মীর ইদ্রিস, হাবিব উল্লাহ, আহসান উল্লাহ, জাকারিয়া নোমান ফয়েজীর নামও রয়েছে আসামির তালিকায়। বিস্মিত হলাম! যে আল্লামা আহমদ শফি হুজুর ছিলেন এদেশের হাজারো ইসলাম প্রেমীর আধ্যাত্মিক জগতের রাহবার ও আলেম- উলামা-মাশায়েখের মাথার মুকুট। তিনি ছিলেম মদনী (রঃ)এর অনুমতি প্রাপ্ত শেষ খলিফা। আার তাঁকে মানসিক নির্যাতন করে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হত্যা করাহয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে! আর যাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে তাঁরাও আমাদের দৃশ্যত দৃষ্টিতে ওলামা মশায়েখ! উনারা আবার সময়ে সময়ে ইসলাম রক্ষায় এমন হুঙ্কার ছাড়েন তাতে সরকারও তটস্থ হয়ে পড়েন। আর আমরা ধর্মান্ধারা ইসলাম গেলো ইসলাম গেলো বলে হা হুতাশ বিলাপ করে বেড়াই! আমরা যদি বিদায় হজ্জের ভাষণ ১০ম হিজরিতে অর্থাৎ ৬৩২ খ্রিষ্টাব্দে হজ্জ পালনকালে আরাফাতের ময়দানে ইসলাম ধর্মের শেষ রাসুল মুহাম্মাদ (স:) কর্তৃক প্রদত্ত খুৎবা বা ভাষণ এর কথা মনে করি যা হজ্জ্বের দ্বিতীয় দিনে আরাফাতের মাঠে অবস্থানকালে অনুচ্চ জাবাল-এ-রাহমাত টিলার শীর্ষে দাঁড়িয়ে উপস্থিত সমবেত মুসলমানদের উদ্দেশ্যে যে ভাষণ তিনি দিয়েছিলেন। মুহাম্মাদ (স:) জীবিতকালে সেটাই শেষ ভাষণ ছিলো, তাই সচরাচর এটিকে বিদায় খুৎবা বলে আখ্যায়িত করা হয়ে থাকে। ইসলামের প্রকৃত মূল্যবোধ অনুযায়ী মুসলমানদের করণীয় সম্পর্কে এই ভাষণে চূড়ান্ত দিকনির্দেশনা ছিলো। ইসলাম ধর্ম যে ধাপে ধাপে ও পর্যায়ক্রমে পূর্ণতা পেয়েছিলো, তারই চূড়ান্ত ঘোষণা ছিলো মুহাম্মাদ (স:) এর এই ভাষণ। এ কারণে সেদিন ভাষণ প্রদানকালে কুরআনের সূরা মায়িদাহ’র ৩ নম্বর আয়াত অবতীর্ণ হয়েছিলো – “ আজ আমি তোমাদের ধর্মকে পরিপূর্ণ করে দিলাম এবং তোমাদের প্রতি আমার অনুগ্রহকারীকে সুসম্পন্ন করলাম, আর ইসলামকে তোমাদের ধর্ম হিসেবে মনোনীত করলাম। ” এই ভাষণে ইসলাম ধর্মের মর্মবাণী সংক্ষেপে বর্ণিত হয়েছিলো। মুসলিম জাতির সাফল্যের ধারা বজায় রাখতে মুসলমানদের করণীয় সম্পর্কে মুহাম্মাদ চূড়ান্ত দিকনির্দেশনা দিয়েছিলেন। এই ঐতিহাসিক ভাষণ কেবল উপাসনামূলক অনুশাসন ছিলো না, বরং মানবসমাজের জন্য করণীয় সম্পর্কে সুস্পষ্ট ভাষায় কিছু গুরুত্বপূর্ণ উপদেশও এতে ছিলো। আল্লাহর প্রতি আনুগত্য, তার সার্বভৌমত্বের স্বীকৃতি, মানবজাতির ঐক্য, আধ্যাত্মিক ভ্রাতৃত্ব, সামাজিক স্বাধীনতা এবং গণতান্ত্রিক সাম্য ইত্যাদি সমাজ বিনির্মাণের অন্যতম সব বিষয়ই এই ভাষণের অন্তর্ভুক্ত ছিলো। এই ভাষণে তাকওয়া বা দায়িত্বনিষ্ঠতার কথা গুরুত্ব দেয়া হয়েছিলো এবং পাপাচারের বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারী দেয়া হয়েছিলো। সহিহ মুসলিমে ভাষণটি এসেছে এভাবে – “হে মানব মন্ডলী! তোমরা হৃদয়ের কর্ণে ও মনোযোগ সহকারে আমার বক্তব্য শ্রবণ কর। আমি জানিনা, আগামী বছর এ সময়ে, এ- স্থানে, এ-নগরীতে সম্ভবত তোমাদের সাথে আমার সাক্ষাৎ আর হবে কি না। “হে মানব সকল। সাবধান। সকল প্রকার জাহেলিয়াতকে আমার দুপায়ের নিচে পিষ্ঠ করে যাচ্ছি। নিরাপরাধ মানুষের রক্তপাত চিরতরে হারাম ঘোষিত হল। প্রথমে আমি আমার বংশের পক্ষ থেকে রবিয়া বিন হারেস বিন আবদুল মোত্তালিবের রক্তের দাবী প্রত্যাহার করে নিচ্ছি। সে বনি লাইস গোত্রে দুধ পান করেছে, হুযাইল তাকে হত্যা করেছে। জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্র থেকে ’সুদ’ কে চির দিনের জন্য হারাম ও নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হল। আমি আজ আমার চাচা আব্বাস ইবনে আবদুল মোত্তালিবের যাবতীয় সুদের দাবী প্রত্যাহার করে নিচ্ছি। হে লোক সকল! বল আজ কোন দিন? সকলে বলল “আজ মহান আরাফার দিন, আজ হজ্বের বড় দিন” সাবধান! তোমাদের একের জন্য অপরের রক্ত তার মাল সম্পদ, তার ইজ্জত-সম্মান আজকের দিনের মত, এই হারাম মাসের মত, এ সম্মানিত নগরীর মত পবিত্র আমানত। সাবধান! মানুষের আমানত প্রকৃত মালিকের নিকট পৌঁছে দেবে। হে মানব সকল! নিশ্চয়ই তোমাদের সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ একজন, তোমাদের সকলের পিতা হযরত আদম । আরবের উপর অনারবের এবং অনারবের উপর আরবের কোন শ্রেষ্ঠত্ব নেই, সাদার উপর কালোর আর কালোর উপর সাদার কোন মর্যাদা নেই। ‘তাকওয়াই’ শুধু পার্থক্য নির্ণয় করবে। হে লোক সকল! পুরুষদেরকে নারী জাতীর উপর নেতৃত্বের মর্যাদা দেয়া হয়েছে। তবে নারীদের বিষয়ে তোমরা আল্লাহ তা’য়ালাকে ভয় কর। নারীদের উপর যেমন পুরুষদের অধিকার রয়েছে তেমনি পুরুষদের উপর রয়েছে নারীদের অধিকার। তোমরা তাদেরকে আল্লাহর জামিনে গ্রহণ করেছ। তাদের উপর তোমাদের অধিকার হচ্ছে নারীরা স্বামীর গৃহে ও তার সতীত্বের মধ্যে অন্য কাউকেও শরিক করবেনা, যদি কোন নারী এ ব্যপারে সীমা লংঘন করে, তবে স্বামীদেরকে এ ক্ষমতা দেয়া হচ্ছে যে, তারা স্ত্রীদের থেকে বিছানা আলাদা করবে ও দৈহিক শাস্তি দেবে, তবে তাদের চেহারায় আঘাত করবে না। আর নারীগণ স্বামী থেকে উত্তম ভরণ পোষণের অধিকার লাভ করবে, তোমরা তাদেরকে উপদেশ দেবে ও তাদের সাথে সুন্দর আচরণ করবে। হে উপস্থিতি! মুমিনেরা পরষ্পর ভাই আর তারা সকলে মিলে এক অখন্ড মুসলিম ভ্রাতৃ সমাজ। এক ভাইয়ের ধন-সম্পদ তার অনুমতি ব্যতিরেকে ভক্ষণ করবে না। তোমরা একে অপরের উপর জুলুম করবেনা। হে মানুষেরা! শয়তান আজ নিরাশ হয়ে পড়েছে। বড় বড় বিষয়ে সে তোমাদের পথ ভ্রষ্ট করতে সমর্থ হবে না, তবে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বিষয়ে তোমরা সর্তক থাকবে ও তার অনুসারী হবেনা। তোমরা আল্লাহর বন্দেগী করবে, দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত সালাত প্রতিষ্ঠা করবে, রমজান মাসের সিয়াম পালন করবে, যাকাত আদায় করবে ও তোমাদের নেতার আদেশ মেনে চলবে, তবেই তোমরা জান্নাত লাভ করবে। সাবধান! তোমাদের গোলাম ও অধীনস্তদের বিষয়ে আল্লাহ তা’আলাকে ভয় কর। তোমরা যা খাবে তাদেরকে তা খেতে দেবে। তোমরা যা পরবে তাদেরকেও সেভাবে পরতে দেবে। হে লোক সকল! আমি কি তোমাদের নিকট আল্লাহ তা’আলার পয়গাম পৌছে দিয়েছি? লোকেরা বলল, “হ্যা” তিনি বললেন “আমার বিষয়ে তোমাদের জিঞ্জাসা করা হবে, সে দিন তোমরা কি সাক্ষ্য দিবে, সকলে এক বাক্যে বললেন, “আমরা সাক্ষ্য দিচ্ছি যে আপনি আমাদের নিকট রিসালাতের পয়গাম পৌঁছে দিয়েছেন, উম্মতকে সকল বিষয়ে উপদেশ দিয়েছেন, সমস্ত গোমরাহির আবরণ ছিন্ন করে দিয়েছেন এবং অহীর আমানত পরিপূর্ণ ভাবে পৌঁছে দেয়ার দায়িত্ব পালন করেছেন” অত:পর রাসূলুল্লাহ নিজ শাহাদাত আঙ্গুলি আকাশে তুলে তিনবার বললেন, “হে আল্লাহ তা’আলা আপনি সাক্ষী থাকুন, আপনি স্বাক্ষী থাকুন, আপনি সাক্ষী থাকুন”। হে মানুষেরা! আল্লাহ তায়ালা তোমাদের সম্পদের মিরাস নির্দিষ্টভাবে বন্টন করে দিয়েছেন। তার থেকে কম বেশি করবেনা। সাবধান! সম্পদের তিন ভাগের এক অংশের চেয়ে অতিরিক্ত কোন অসিয়ত বৈধ নয়। সন্তান যার বিছনায় জন্ম গ্রহণ করবে, সে তারই হবে। ব্যভিচারের শাস্তি হচ্ছে প্রস্তরাঘাত। (অর্থাৎ সন্তানের জন্য শর্ত হলো তা বিবাহিত দম্পতির হতে হবে। ব্যভিচারীর সন্তানের অধিকার নেই)। যে সন্তান আপন পিতা ব্যতীত অন্যকে পিতা এবং যে দাস নিজের মালিক ব্যতীত অন্য কাউকে মালিক বলে স্বীকার করে, তাদের উপর আল্লাহ তা’আলা, ফেরেশতাকুল এবং সমগ্র মানব জাতির অভিশাপ এবং তার কোন ফরয ও নফল ইবাদত কবুল হবে না। হে কুরাইশ সম্প্রদায়ের লোকেরা! তোমরা দুনিয়ার মানুষের বোঝা নিজেদের ঘাড়ে চাপিয়ে যেন কিয়ামতে আল্লাহর সাথে সাক্ষাৎ না কর। কেননা আমি আল্লাহর আযাবের মোকাবিলায় তোমাদের কোন উপকার করতে পারবো না। তোমাদের দেখেই লোকেরা আমল করে থাকবে। মনে রেখ! সকলকে একদিন আল্লাহ তা’আলার নিকট হাজির হতে হবে। সে দিন তিনি প্রতিটি কর্মের হিসাব গ্রহণ করবেন। তোমরা আমার পরে গোমরাহিতে লিপ্ত হবে না, পরস্পর হানাহানিতে মেতে উঠবনা। আমি আখেরী নবী, আমার পরে আর কোন নবী আসবেনা। আমার সাথে অহীর পরিসমাপ্তি হতে যাচ্ছে। হে মানুষেরা! আমি নিঃসন্দেহে একজন মানুষ। আমাকেও আল্লাহ তায়ালার ডাকে সাড়া দিয়ে চলে যেতে হবে। আমি তোমাদের জন্য দুটি বস্তু রেখে যাচ্ছি যতদিন তোমরা এই দুটি বস্তু আঁকড়ে থাকবে, ততদিন তোমরা নিঃসন্দেহে পথভ্রষ্ট হবে না। একটি আল্লাহর কিতাব ও অপরটি রাসূলের সুন্নাহ। হে মানব মন্ডলী! তোমরা আমির বা নেতার আনুগত্য করো এবং তার কথা শ্রবণ করো যদিও তিনি হন হাবশী ক্রীতদাস। যতদিন পর্যন্ত তিনি আল্লাহর কিতাব অনুসারে তোমাদের পরিচালিত করেন, ততদিন অবশ্যই তাঁর কথা শুনবে, তাঁর নির্দেশ মানবে ও তাঁর প্রতি আনুগত্য করবে। আর যখন তিনি আল্লাহর কিতাবের বিপরীতে অবস্থান গ্রহণ করবে, তখন থেকে তাঁর কথাও শুনবেনা এবং তাঁর আনুগত্যও করা যাবেনা। সাবধান! তোমরা দ্বীনের ব্যাপারে বাড়াবাড়ি থেকে বিরত থাকবে। জেনে রেখো, তোমাদের পূর্ববর্তীগণ এই বাড়াবড়ির কারণেই ধ্বংস হয়ে গেছে। (এ নির্দেশনাটি হচ্ছে অমুসলিমদের ক্ষেত্রে অর্থাৎ কোন বিধর্মীকে বাড়াবাড়ি বা জোরজবস্তি করে ইসলামে দীক্ষা দেয়া যাবে না। তবে একজন মুসলমানকে অবশ্যই পরিপূর্ণ ইসলামী জীন্দেগী অবলম্বন করে জীবন যাপন করতে হবে। এক্ষেত্রে সুবিধাবাদের কোন সুযোগ নেই)। আবার বললেন, আমি কি তোমাদের নিকট আল্লাহর দ্বীন পৌছে দিয়েছি? সকলে বললেন, “নিশ্চয়ই”। হে উপস্থিতগণ! অনুপস্থিতদের নিকট আমার এ পয়গাম পৌছে দেবে। হয়তো তাদের মধ্যে কেউ এ নসিহতের উপর তোমাদের চেয়ে বেশি গুরুত্বের সাথে আমল করবে। “তোমাদের উপর শান্তি বর্ষিত হোক” বিদায়। এই ছিলো আমাদের প্রিয় নবী হাসরের ময়দানে যাঁর সাহায্য প্রত্যাশী আমরা। তাহলে কেন আমরা অনাহুত বিভিন্ন সময়ে নানান অজুহাতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে রক্তপাত হানাহানিতে লিপ্ত হচ্ছি। ধর্মীয় জ্ঞান শুন্য একজন মুসলিম ভাই হিসেবে এটুকু অনুরোধ নিশ্চয়ই রাখতে পারি যে, অনেক হয়েছে আর নয়। আমরা অন্তত আমাদের একমাত্র ভরসা যিনি আমাদের জন্য আল্লাহর সাথে ওকালতি করবেন সেই প্রিয় নবীর কথা,জীবনাচরণ, ভাষণ মনেপ্রাণে অনুধাবন করে চলতে শুরু করি। নিশ্চয়ই আল্লাহ আমাদের উপর শান্তি বর্ষিত করবেন। লেখকঃ মোহাম্মদ হাসান, সাংবাদিক ও কলামিস্ট। তথ্য সূত্রঃ উইকিপিডিয়া, ইন্টারনেট।

Материалы по теме:

আওয়ামী যুবলীগের ২০১ সদস্যের কেন্দ্রীয় কমিটি অনুমোদন
মোহাম্মদ হাসানঃ বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ২০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। আজ শনিবার সন্ধ্যায় যুবলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, ...
‘মানবিক ব্লাড ফাউন্ডেশন নোয়াখালী’ এর উদ্দ্যোগে ফ্রী ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পেইন কার্যক্রম ২০২০ইং অনুষ্ঠিত !!
গত ১০ই নভেম্বর ২০২০ ইং রোজ মঙ্গলবার সকাল ১০ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত মানবিক ব্লাড ফাউন্ডেশন, নোয়াখালী এর উদ্দ্যোগে স্বেচ্ছায় রক্তদানে উৎসাহিত ...
ফোন পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম: আদালতে মাহফুজ।সত্যের সন্ধানে নিউজ।
সংবাদ সংগ্রহ: মোঃ জাহাঙ্গীর আলম জাহান- সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ মামলার আসামি মাহফুজুর রহমানের পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। বুধবার (৩০ ...
নীল-লাল রাজ্য নয়, আমি দেখি যুক্তরাষ্ট্র -বাউডেন।
মোরতুজার রহমান: যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, আমি বিভেদ নয়, ঐক্য চাই। কোন রাজ্য নীল, কোন রাজ্য লাল, তা আমি দেখি না। আমি ...
র‍্যাবের অভিযানে রাজধানীর আন্তঃজেলা ডাকাত দল “কোম্পানী”র প্রধান অস্ত্র সহ গ্রেফতার।
মোহাম্মদ হাসানঃ রাজধানী ঢাকার পল্লবী থেকে সাভার থানার চাঞ্চল্যকর ডাকাতি মামলার মূলহোতাকে বিদেশি পিস্তল ও গুলিসহ গ্রেফতার করেছেন র‌্যাব-৪। গতকাল ৮নভেম্বর রবিবার দুপুর আনুমানিক ১ঘটিকায় ...
আপনার মন্তব্য লিখুন
  •   দোহারে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের মোড়কের আড়ালে নিম্নমানের চিনিগুড়া চাল প্যাকেটিং ও বাজারজাত করায় জরিমানা
  •   শিল্পপতি আবুল বাশারের পিতার জানাযা ও দাফন সম্পন্ন।
  •   সেতুমন্ত্রীর বাড়ির সামনে ককটেল বিস্ফোরণ, ৫ ককটেল উদ্ধার
  •   সোনাগাজীর বগাদানায় ভাঙ্গা ঘরে মানবেতর জীবনযাপন করছেন ইসমাইলের পরিবার
  •   দাগনভূঞার শিল্পপতি আবুল বাশারের পিতা হাজী আমিন উল্লাহ’র ইন্তেকাল
  •   মৌলভীবাজারের “জেলা প্রশাসক করোনা” যুদ্ধে জয়ী।
  •   স্ত্রীর বালিশ চাপায় স্বামীর মৃত্যু, লাশ দাফনের ১১ দিন পর মরদেহ উত্তোলন
  •   আজ থেকে শোকের মাস আগষ্ট শুরু ।
  •   সোনাগাজীতে হারানো মোবাইল উদ্ধার করে মালিকের হাতে হস্তান্তর করলো পুলিশ
  •   এস.এম কিবরিয়াকে বাংলাদেশ প্রেস ক্লাব থেকে অব্যাহতি প্রদান
  •   সোনাগাজীর মতিগঞ্জ ইউনিয়নে শিক্ষা সামগ্রী, ক্রীড়া সামগ্রী ও কীটনাশক ছিটানোর স্প্রে মেশিন বিতরন
  •   ছাগলনাইয়ায় পালক পিতার বিরুদ্ধে মেয়ের যৌন নির্যাতনের মামলা।
  •   কল দিলে পৌঁছে যাবে ফেনীতে করোণা আক্রান্ত রোগীর জন্য ফ্রী অক্সিজেন সেবা
  •   মৌলভীবাজারে পাহাড় ও বনজঙ্গল ঘেরা সাপের রাজ্যে বিষের চিকিৎসা কতদূর
  •   ফেনীর দাগনভূঞায় রিপোটার্স ইউনিটির আয়োজনে দেড় হাজার লোকের মাঝে স্বাস্থ্য উপকরণ বিতরন।
  •   র‍্যাব হেফাজতে হেলেনা জাহাঙ্গীর, জব্দ করা হয়েছে বিদেশি মদ ও হরিণের চামড়া
  •   কমলগঞ্জে”স্ত্রীর পরকীয়ায়” জীবন গেল স্বামীর।
  •   ঠাকুরগাঁওয়ে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন
  •   মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ নোয়াখালী জেলার সুবর্ণচর শাখা কমিটি ঘোষণা
  •   কুলাউড়ায় ডাকাত আটক,৬রাউন্ড গুলিসহ দেশীয় পাইপগান উদ্ধার।











  • উপদেষ্টা : দিদারুল কবির রতন
    পৃষ্টপোষক : জসিম উদ্দিন লিটন
    ব্যবস্থাপনা পরিচালক : ফারুক আহমেদ সুমন
    সহ ব্যবস্থাপনা পরিচালক: মো: শাহ আলম
    সম্পাদক ও প্রকাশক : সুমন পাটোয়ারী
    অফিস : লিটন ব্রাদার্স ফাজিলের ঘাট-রোড দাগনভূঞা, ফেনী
    ফোন: 01816284600


    জসিম উদ্দিন লিটন
    সম্পাদক ও প্রকাশক

    সুমন পাটোয়ারী
    নির্বাহী সম্পাদক ও এডিটর


    বি:দ্রি:-উক্ত অনলাইন পোর্টালটির সকল পেপার্সের কার্যাদি প্রক্রিয়াধীন আছে।
    © 2021. sottersondhanenews.com All Right Reserved.
    Developed By   AS Shuvo
    উপরে যান